দুর্নীতির কবলে কাউকাপন বাজারের মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ

লাইক দিন ও শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : দুর্নীতির কবলে কুলাউড়া উপজেলার ১০নং হাজীপুর ইউপির কাউকাপন বাজারের মনু প্রতিরক্ষা বাঁধ। স্থানীয়দের সাথে প্রতিবেদকের আলাপ কালে জানা যায় প্রতিরক্ষা বাঁধের জন্য মৌলভীবাজার ২ (কুলাউড়া) এর সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ ৩০ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ প্রদান করলে পরবর্তীতে বরাদ্ধ আরও বর্ধিত করা হয়। সংসদ সদস্য প্রতিরক্ষা বাঁধ পরিদর্শনের আগে ও পরিদর্শন কালে ১২০-১৫০ জন লোক দিনরাত কাজ করতো, বর্তমানে সেখানে ২০/২২ জন লোক কাজ করছে।প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মানে ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের সাথে জিও ব্যাগে বালু ভর্তির চুক্তি ছিলো ১৭৫ কেজি এবং সিমেন্ট ব্যাগে ৫০ কেজি, সরেজমিনে স্থানীয়দের সহায়তায় মেপে জিও ব্যাগে ১৩০/১৩৫ কেজি, সিমেন্ট ব্যাগে ৩০/৩৫ কেজি বালু পাওয়া যায়।

কাজের অবস্তা দেখে মনে হলো অপরিকল্পিত ও অদক্ষ শ্রমিকদের কারণে মাস পেরিয়ে গেলেও তেমন কোন অগ্রগতি নেই, বালুর বস্তা প্রতিরক্ষা বাঁধে ফেলার সাথে সাথে নদীগর্ভে বীলিন হয়ে যাচ্ছে। গোপন সূত্রে জানা যায় বালু ভর্তি বস্তা গুলো কৌশলে গুণণায় ২/৩ বার করে ধরা হয়। জেলা প্রকৌশলীর বিবৃতি অনুযায়ী  প্রতিরক্ষা বাঁধের কাজ গত ১৫ই আগস্ট শেষ করে যোগাযোগ ব্যবস্তা সচল করার ঘোষনা থাকলেও অজানা কারণে অদ্যাবধি তার কোন অগ্রগতি লক্ষ্য করা যায় নাই।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু’র সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, বালুর বস্তা তদারকির জন্য সংসদ সদস্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি করে কমিটির সদস্যবৃন্দকে বালুর বস্তার সঠিক মাপ, বস্তার পরিমান দেখে গুণে তা পানি উন্নয়ন বোর্ড কতৃক নিযুক্ত ব্যক্তির কাছে হিসাব জমা দেওয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে কি হচ্ছে তিনি বোধগম্য নন। তিনি দু:খের সাথে জানান গত ১৭ দিন যাবত কাউকাপন বাজারের রাস্তা নদী ভাঙ্গনের কারণে লক্ষাধিক মানুষ জনদুর্ভোগে পড়েছে, স্থানীয় সরকারের মন্ত্রী কতৃক প্রধান প্রকৌশলীকে বিকল্প সড়কের নির্দেশনা দেওয়ার পরেও প্রধান প্রকৌশলী তো দুরের কথা স্থানীয় উপজেলা প্রকৌশলীকে অত্র এলাকার মানুষ চোখে দেখে নাই যা জনগণের সাথে তামাশার সামিল। 

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বিকল্প সড়ক চালুর ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আগামী ১ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদে সংবাদ সম্মেলনের ঘোষনা দেন।

One thought on “দুর্নীতির কবলে কাউকাপন বাজারের মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *