পড়ুন, কাজে লাগতেও পারে

লাইক দিন ও শেয়ার করুন

নিউজ ডেস্ক : ২৪ ঘন্টা সময় পেরুতে না পেরুতেই কুলাউড়ায় ৫টি সড়ক দূর্ঘটনা।

প্রিয় যাত্রী ভাই ও বোনেরা ……

১) চালক, যাত্রী সবার মনে রাখতে হবে একটি দূর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না।
২) চালক যদি অনিয়ন্ত্রিত, বেপরুয়া গাড়ী চালান তাহলে জোর গলায় নিষেদ করে গাড়ী নিয়ন্ত্রনে চালাতে বাধ্য করুন।
৩) বিপদজনক ওভার টেইক থেকে বিরত থাকুন।
৪) বাঁক/মোড় গুলো ভালো করে দেখে, হর্ণ বাজিয়ে অতিক্রম করুন।
৫) বেশীর ভাগ সময় দেখা যায় প্রায় 4 ষ্ট্রোক (CNG) গাড়ী গুলো বেপরুয়া গতিতে চলে এমনকি বড় বড় গাড়ীর সাথে পাল্লা দিয়ে চলতে চায়। যা মারাত্মক বিপদজনক, এই তুলনামূলক পাতলা/দুর্বল গাড়ীগুলো দূর্ঘটনায় আক্রান্ত হলে দুমড়ে মুচড়ে যায়। যাত্রী ভাইদের প্রতি অনুরুধ এদের গাড়ীর গতি নিয়ন্ত্রিত করতে প্রতিবাদ করুন এবং চালককে বাধ্য করুন।
৬) কুলাউড়া থেকে সিলেট, সিলেট থেকে কুলাউড়া, কুলাউড়া থেকে মৌলভীবাজার, মৌলভীবাজার থেকে কুলাউড়াগামী বাস গুলো কুলাউড়া থেকে কিংবা সিলেট থেকে ছেড়ে ধীরে ধীরে অর্ধেক পথ অতিক্রম করে বাকী অর্ধেক পথ বেপরুয়া ভাবে অতিক্রম করে , যেন নির্ধারিত সময়ের ভিতর গন্তব্যে পৌছাতে পারে , যার কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনায় পড়ে যাত্রীদের প্রাণহানি হয়। গতকাল কুলাউড়ার জাললাবাদ গ্যাস ফিল্ড এর পাশে মোটর সাইকেলের সাথে সিলেট থেকে আসা বাসের সংঘর্ষের কারণ অনেকটা উপরোল্লিখিত কারণ বলে আমি মনে করি।
৭) আপনি যে গাড়িতে গমন করবেন দেখে নিন সেই গাড়ীর চালক স্বাভাবিক কি না ?
৮) চালক/ যাত্রী হোন মনে রাখতে হবে বাড়ীতে কারো অসুস্থ বাবা/মা কিংবা ছোট ছেলে মেয়ে রেখে এসেছেন, আপনিই আপনার বাবা/মা’ কিংবা ছেলে মেয়েদের একমাত্র অবলম্বন। বাবা/মা’র জন্য ঔষধ নিয়ে বাড়ী ফেরার কথা, ছোট ছেলে/মেয়ের জন্য চকলেট নিয়ে ফেরার কথা, কিন্তু আপনি ফিরলেন লাশ হয়ে। ভেবে দেখুন আপনার অবর্তমানে তারা কিভাবে দিনাতিপাত করবে…?????? নিশ্চয় হৃদয়ঙ্গম করতে পারবেন। সতর্কতা অবলম্বন করুন, সড়ক দূর্ঘটনার লাশের মিছিলে আর যেন কেউ যোগ না হয়।
৯) ঘর থেকে বের হওয়ার সময় বাবা/মা’কে বলে আসুন। তাদের দোয়া থাকবে আপনার উপর।
১০) ঘর থেকে বের হওয়ার সময় গোসল করে পবিত্র হয়ে বের হবেন, কেননা যদি আল্লাহর হুকুম হয়ে যায় তাহলে এই গোসলই হতে পারে আপনার জীবনের শেষ গোসল।
১১) কেউ জানেনা কখন কোথায় সে মৃত্যু বরণ করবে- আল কুরআন। মানুষের সাথে লেনদেন থাকলে শেষ করুন, কারো মনে কষ্ট দিয়ে থাকলে মাফ চেয়ে নিন। কেননা আজকের এই মুহুর্তই হতে পারে আপনার জীবনের শেষ মুহুর্ত। আজকের এই দিনই হতে পারে আপনার জীবনের শেষ দিন।
১২) সর্বোপরি যার যার ধর্মানুয়ায়ী বাড়ী থেকে বের হওয়ার সময় মহান সৃষ্টিকর্তাকে স্বরণ করুন। কারণ, জন্ম, মৃত্যু, বাঁচা, মরা সব নির্ধারণ করে মহান সৃষ্টিকর্তার উপর। সৃষ্টিকর্তার নিষেধ, নির্দেশ মেনে চলুন, নিশ্চয় তিনিই সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী………….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *