মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ,আমি এখানে যা দেখেছি,সে চিত্র নেত্রীর কাছে তুলে ধরবোঃ—–শফিক

লাইক দিন ও শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন শফিক মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দ্যেশে বলেছেন,জননেত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

তাঁর নেতৃত্বে আজ যে আন্দোলন চলছে তা অন্য কারও বিরুদ্ধে নয়, তা আত্মশুদ্ধির আন্দোলন আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করার জন্য,শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য।

যারা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত,যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলা চলমান, তাদের স্পষ্ট বার্তা দিতে চাই, আগামীতে এই মৌলভীবাজারে কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদে তারা আসীন হতে পারবেন না।

তবে তারা দল করতে পারবেন,সদস্য থাকতে পারবেন,কিন্তু তাদের আত্মশুদ্ধির মধ্য দিয়ে প্রমাণ করতে হবে যে,তাদের দল ও শেখ হাসিনার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা,ভালোবাসা ও দায়বদ্ধতা রয়েছে।যারা মাদক ব্যবসা, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি,জমি দখলের সঙ্গে জড়িত তাদের ব্যাপারে তথ্য দেবেন, ব্যবস্থা নেব।

আজ দুপুরে মৌলভীবাজার টি ভিলা রির্সোটে নেতা কর্মীদের উদ্দ্যেশে তিনি এ কথা বলেন।

মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের প্রতিনিধি সভা আয়োজন না করায় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের উপর তিনি ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন,শফিক বলেন,সিলেট বিভাগে তৃণমূল পর্যায়ে আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করতে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন।

অতীতে কী হয়েছিল,সেদিকে না তাকিয়ে বর্তমান ও আগামীর কথা বিবেচনা করে সংশোধন ও পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে দলকে শক্তিশালী করতে হবে।

আমি এখানে যা দেখেছি,সে চিত্র নেত্রীর কাছে তুলে ধরব।তিনি বলেন, আপনারা জায়গা করে না দিলে বিএনপি-জামায়াত কী করে দলে ঢোকার সুযোগ পায়! জঙ্গি, মৌলবাদ, জামায়াত-শিবিরের সন্ত্রাসীদের হাতে আমাদের বহু নেতা-কর্মী জীবন দিয়েছেন।

তারা আমাদের সঙ্গে রাজনীতি করবে তা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না,তাদের যারা সুযোগ দিয়েছেন তাদের কেন প্রতিহত করতে পারেন না।

এ সময় টি ভিলা রিসোর্টে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগ,সেচ্ছাসেবক লীগ,মৎস্যজিবী লীগ,যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *